কোরিয়াতে পাসপোর্ট এর মেয়াদ শেষ? রিনিউ করবেন যেভাবে

সর্বপ্রথম www.bdembassykorea.org থেকে নতুন পাসপোর্টের আবেদন ফরমটি (MRP Reissue Form) ডাউনলোড করে নিন। (পোষ্টে দেওয়া রয়েছে এখান থেকেও ডাউনলোড করে নিতে পারেন) অথবা এখানে ক্লিক করেও ডাউনলোড নির্দেশনা অনুযায়ী সুন্দরভাবে পরিষ্কার হস্তাক্ষরে পূরণ করুন।

নোট: প্রত্যেক ঘর পূরণ করতে হবে এবং কোম্পানির ঠিকানা ইংরেজীতে লিখতে হবে। পাসপোর্টের সাথে স্বাক্ষর মিল থাকতে হবে এবং যেদিন পাঠাবেন সেদিনকার তারিখ বসাবেন।

২) ফরমের নির্দিষ্ট স্থানে পিপি সাইজের ছবি (55×45 mm) আঠা দিয়ে লাগিয়ে নিন। (ছবিটা অবশ্যই সাম্প্রতিক ৬ মাসের মধ্যে তোলা হতে হবে এবং ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হতে হবে)

৩) পাসপোর্টের সাথে তথ্যের মিল আছে, এমন ভোটার আইডি অথবা জন্ম নিবন্ধন অথবা উভয়টাই ফটোকপি করে নিন।

৪) কেবি হানা ব্যাংক ১,২০,০০০ উয়ন প্রেরণ করুন এবং তার রশিদ সংগ্রহ করুন।বর্তমান ব্যাংকের তথ্য:

주한 방글라데시 대사관

KEB Hana Bank (code 081)

166-89-0000-59-001

নোট ১: বর্তমানে নতুন পাসপোর্ট এর আবেদন মূল্য সাধারণদের জন্য ১,২০০০০ (এক লক্ষ বিশ হাজার) উয়ন ও ছাত্রদের জন্য ৪০০০০ (চল্লিশ হাজার) উয়ন। পরবর্তীতে এই মূল্য কম বেশি হতে পারে। তাই প্রেরণের পূর্বে ঠিক কত টাকা পাঠাতে হবে তা যাচাই করে নিন।

নোট ২ : বর্তমানে বাংলাদেশ দূতাবাস এই অ্যাকাউন্টটি ব্যবহার করছে পরবর্তীতে বদলে যেতে পারে তাই টাকা প্রেরণের পূর্বে ওয়েবসাইট থেকে আরেকবার যাচাই করে নিন।৫) পোস্ট অফিস থেকে ১০০ উয়নের মাঝারি সাইজের ২টি খাম সংগ্রহ করুন এবং প্রত্যেক খামের উপরে ৩০০০ উনের ডাকটিকিট লাগিয়ে নিন।

নোট: একটি খামের উপরে আপনার কোম্পানির ঠিকানা লিখুন, যেখানে আপনি পাসপোর্ট পেতে চান। এবং অপর খামটির উপর বাংলাদেশ দূতাবাসের ঠিকানা লিখুন।বর্তমান বাংলাদেশের দূতাবাসের ঠিকানা:17 Jangmun-ro 6-gil, Seobinggo-dong, Yongsan-gu, Seoul서울시 용산구 서빙고동 장문로 6 길 17

নোট ২: বাংলাদেশ দূতাবাসের স্থান পরিবর্তন হতে পারে সুতরাং পাঠানোর পূর্বে যাচাই করে নিন।

৬) মূল এবং ফাইনাল কাজ। দূতাবাসের ঠিকানা লিখিত খামের মধ্যে

১) বর্তমান পাসপোর্ট

২) নতুন পাসপোর্ট করার ফরম

৩) পাসপোর্ট এর সাথে সংশ্লিষ্ট কাগজ

৪) ব্যাংকে টাকা পাঠানোর রশিদ

৫) আপনার কোম্পানির ঠিকানা লেখা খাম

এই ৫ টা কাগজ ভরে সিলগালা করে দূতাবাসের ঠিকানায় পাঠিয়ে দিন।

উল্লেখ্য যে, যদি আপনি পাসপোর্টে আপনার ছবি পরিবর্তন করতে চান। তাহলে আপনাকে স্বশরীরে দূতাবাসের উপস্থিত হয়ে দুতাবাসের ক্যামেরায় ছবি তুলতে হবে। অন্যথায় সব কাজ সম্পন্ন হয়েছে।এবার বাংলাদেশ দূতাবাসের ফেসবুক পেজে চোখ রাখুন। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আপনার পাসপোর্ট আপনার ঠিকানায় চলে আসবে।

বিঃদ্রঃ হাতে পাওয়ার ১৪দিনের ভিতরে কোরিয়ান ইমিগ্রেশনকে নতুন পাসপোর্ট সম্পর্কে অবহিত করুন।