• মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২২ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English Nepali Nepali Vietnamese Vietnamese

পতিত জমিতে ড্রাগন ফলের চাষ

রিপোর্টার
আপডেট : শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১

বিজ্ঞাপন

হাবিবুর ও শফিকুল বলেন, বুড্ডা গ্রামের তিতাস নদের পারে তাঁরা ৩ একর পতিত জমি ১০ বছরের জন্য ভাড়া নিয়েছেন ৭ লাখ টাকায়। গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর ওই জমিতে ১ হাজার ৫০০ খুঁটির পাশে তাঁরা রোপণ করেছেন ৬ হাজার ড্রাগন ফলের চারা। যশোর, চট্টগ্রাম ও মৌলভীবাজার থেকে তাঁরা এ চারা কিনে এনেছেন। একেকটি চারা কিনেছেন ৫০ থেকে ২০০ টাকা দরে। এখানে তাঁরা লাল, হলুদ, সাদা ও গোলাপি রঙের ড্রাগনের চারা রোপণ করেছেন।

হাবিবুর ও শফিকুল বলেন, ড্রাগন গাছে রাসায়নিক সারের তেমন প্রয়োজন হয় না। সামান্য জৈব সার দিলেই চলে। আর শীতকালে সন্ধ্যার পর আলোর ব্যবস্থা করতে হয়। এ ফলের গাছ একবার রোপণ করলে টানা ২৫ থেকে ৩০ বছর, এমনকি ৪০ বছর পর্যন্ত ফল পাওয়া যায়। পূর্ণ বয়সের (চারা রোপণের এক বছর পর) একেকটি চারা থেকে প্রতিবছর ২৫ থেকে ৩০ কেজি ফল পাওয়া যায়। আশার কথা হচ্ছে, এ গাছের মৃত্যুঝুঁকি নেই। এ ছাড়া এ বাগান থেকে প্রতিবছর ১৭-১৮ লাখ টাকার চারা বিক্রি করা সম্ভব। এতে তাঁরা বড় অঙ্কের লাভ করতে পারবেন বলে আশা করছেন।

গত জুন থেকে সামান্য ফল পাকা শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে তাঁরা ১০০ কেজির ওপরে বিক্রি করেছেন। স্থানীয় লোকজন আকর্ষণীয় এ ফল ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা কেজি দরে কিনে নিচ্ছেন। তবে ১২ মাস পর পুরোদমে ফলন শুরু হলে তাঁরা এ ফল পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি ২০০ থেকে ৩০০ টাকায় বিক্রি করবেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ড্রাগন মূলত যুক্তরাষ্ট্রের ফল ছিল। পরে ভিয়েতনাম, তাইওয়ান, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া, চীন ও অস্ট্রেলিয়ায় ব্যাপক হারে উৎপাদন শুরু হয়। দুই দশক ধরে আমাদের দেশে এ ফল আমদানি করা হচ্ছে।

কালীকচ্ছ গ্রামের বাসিন্দা তৌহিদুল ইসলাম (৪৫) পেশায় শিক্ষক। তিনি বলেন, ‘এ বাগান দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি।’

হাবিবুর রহমান বলেন, এ বাগানের পেছনে প্রায় ২০ লাখ টাকা খরচ করেছেন। কিছু ঋণ ও কৃষি বিভাগের পরামর্শ পেলে এলাকার অনেক পতিত জমিতে এ ফলের চাষ করতে পারবেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মর্জিনা আক্তার বলেন, শিগগিরই ওই বাগান দেখতে যাবেন ও তাঁদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবেন।

সোর্স: প্রথম আলো


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ